জীবন্ত ব্যাকটেরিয়াল DNA তে ডাটা ইনপুট!!!

E.coli ব্যাকটেরিয়া বেশিরভাগ সময় আমাদের অসুস্থতার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। কিন্তু এই E.coli ব্যাকটেরিয়া বায়োটেকনোলজি এর নতুন পথ খুলে দিয়েছে। ১৯৮৯ এর পর থেকে ডিএনএ নিয়ে বিশদভাবে গবেষণা চলে আসছে। এমনকি গত বছরে একটি ডিএনএ অণুতে ২০০ মেগাবাইট ডিজিটাল ডাটা ইনপুট করার সফলতা এসেছে। ডিএনএ তে A,T,C,G এর ক্যামিক্যাল কম্বিনেশন দ্বারা আমাদের দেহ সম্পর্কে অনেক তথ্য থাকে। কোনও ডিএনএ অণুতে ডাটা ইনপুট করার উপায় হলও ডিজিটাল ডাটাকে A,T,C,G এ কম্বিনেশন এ সাজানো। তবে এতদিনের গবেষণায় কেবলমাত্র ডিএনএ এর উপর ছিলও, কিন্তু Shipman(Scientists of Harvard) ও তার কলিগ জীবন্ত E.coli ব্যাকটেরিয়া এর ডিএনএ তে ডাটা ইনকোড করেছে।
আপনাকে যদি বলা হয়, এই ডিএনএ তে Fast And Furious 8 আছে আর ঐ ডিএনএ তে আছে Transformer the last Knight মুভি। এই কথা শুনে প্রথমেই আপনি ভাববেন আমি হয়তো পাগল। কিন্তু অদ্ভুত হলেও সত্য যে, Shipman একটি E.coli এ ডিএনএ তে একটি GIF ইমেজ ও একটি শর্ট ফিল্ম এনকোড করে তা ৯০% নির্ভুলভাবে ডিকোড করার সফলতা পেয়েছেন।

Shipman  নিচের এই GIF  ইমেজ ইনপুট করেছিলেন DNA তেঃ

এখন ১০০% গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি আপনি ভাবছে, ইহা একটা ভুয়া কথা, জীবিত কোনও ব্যাকটেরিয়ার DNA তে ডাটা এনকোড করা যায় নাকি আবার?? উত্তর হলোঃ হ্যাঁ, অবশ্যই। আপনারা হয়তো জানেন E.coli এমন একটি ব্যাকটেরিয়া যা GMO(Genetically Modified Orgasm) এ সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হয় কারণ এটি গ্রহনকৃত DNA কে সহজেই Transcription করতে পারে। এখন কথা হলও কিভাবে এটা করা হয়েছে
‌। আসল কথা বলতে গেলে, E.coli কে বোকা বানানো হয়েছে। বাহির থেকে যে ডিএনএ E.coli এর প্লাস্মিড এ দেওয়া হয়েছে সেই DNA তেই ডাটা এনকোড করে দেওয়া হয়েছে। আর ব্যাকটেরিয়া তা অন্য সব DNA এর মতো নিয়েছে। এখন আরেকটা প্রশ্ন হলও, কেনই বা দরকার E.coli বা জীবন্ত কোনও কিছুতে ডাটা স্টোর করা। কারণ হলও, ডাটা যেনও দীর্ঘ সময় ধরে সংরক্ষণ করা যায় (১গ্রাম DNA= 786 সেটাবাইট ডাটা)।
Shipman বলেছেন, “আমরা শুধুমাত্র ডাটা স্টোর এর জন্য E.coli কে ব্যবহার করবো না। আমাদের গবেষণার আরেকটি মেজর উদ্দেশ্য হলও, বিভিন্ন কোষের পরিবর্তন গুলো ডিএনএ তে স্টোর করে রাখা জেনো মেডিক্যাল সায়েন্স আরও ডেভেলপ করা যায়। আমরা যদি একবার স্টেম সেল এর রূপান্তর এর রহস্য উদ্ধার করতে পারি তাহলে অনেক সমস্যারই সমাধান বের হয়ে যাবে। “

Comments are closed.